স্মার্ট টিভিতে কি কি ফিচার থাকা প্রয়োজন/ কিছু আবশ্যক ফিচার - Ponnobd Electronics

স্মার্ট টিভিতে কি কি ফিচার থাকা প্রয়োজন/ কিছু আবশ্যক ফিচার

নতুন স্মার্ট টিভি কেনার কথা ভাবছেন? কিন্তু আপনি কি জানেন স্মার্ট টিভিতে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ফিচার থাকা আবশ্যক? তাহলে জেনে নিন স্মার্ট টিভিতে কী কী ফিচার থাকা প্রয়োজন। কারণ স্মার্ট টিভির বিশেষ ফিচার এবং সুবিধাগুলোর জন্যই সবাই স্মার্ট টিভির প্রতি আগ্রহী। যেমনঃ ইন্টারনেট ব্যবহারের সুবিধা, বিভিন্ন অ্যাপস ডাউনলোড, পেন ড্রাইভ কানেকশন, অনলাইনে অনুষ্ঠান উপভোগ, স্ক্রীন ছোট বড় করা ইত্যাদি।

 

খুঁটিনাটি অনেক বিষয় আছে যা টিভি কেনার আগেই নিশ্চিত হয়ে নেওয়া উচিত। তাহলে পরবর্তীতে ইন্টারনেট সংযোগ বা অ্যাপস ইন্সটলে কোন ঝামেলা পোহাতে হবে না। যাইহোক, এখন প্রয়োজনীয় ফিচার গুলো দেখে নেওয়া যাক।

যেসকল ফিচার স্মার্টতে থাকা আবশ্যক

স্মার্ট টিভিতে ইন্টারনেটের সুবিধা, অ্যাপ্লিকেশন ইন্সটলের জন্য অ্যাপ স্টোর থেকেই থাকে। কিন্তু এর পরও এগুলোর সাথে সম্পর্কযুক্ত অনেক কিছু আছে যা আমাদের জানা উচিত। যেমনঃ বিশেষ কিছু সফটওয়্যার, ইউএসবি পোর্ট ইত্যাদি। এখন আসুন নিচে স্মার্ট টিভিতে কী কী ফিচার থাকা প্রয়োজন এক নজরে দেখে নেই।  

ইন্টারনেট

স্মার্ট টিভি WiFi কানেকশন করে চালানোর মত সুবিধা থাকে। কিছু স্মার্ট টিভি WiFi অটো ডিটেক্ট করতে পারে। আবার কিছু আছে আলাদা ডঙ্গল দরকার পরে। WiFi রেডি না WiFi বিল্ট ইন দেখে কিনুন। WiFi রেডি হলে ডঙ্গল দরকার পরবে WiFi সংযোগ করতে।

ইউএসবি পোর্ট

ইউএসবি পোর্ট দিয়ে পেন ড্রাইভ, হার্ড ডিস্ক ইত্যাদি সংযোগ করে স্টোর করা মুভি, অনুষ্ঠান ইত্যাদি দেখা যায়। তাই আপনার টিভিতে ইউএসবি পোর্ট আছে কিনা দেখে নিন। ইউএসবি পোর্ট ২/৩ বিশিষ্ট হতে পারে। তবে কিনার আগে যাচাই করে নিন ইউএসবি পোর্ট কাজ করছে কিনা। কারণ অনেক সময়ই ইউএসবি পোর্ট আর পেন ড্রাইভ সাপোর্ট করে না।

অ্যাপ্লিকেশন

স্মার্ট টিভির অ্যাপস ফাইলে ইন্সটল করা অনেক ধরনের সফটওয়্যার থাকে। যদি আপনি আপনার পছন্দের কোনও অ্যাপ্লিকেশন চান এবং সেটা ডাউনলোড করা না থাকে, তাহলে ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। সেক্ষেত্রে অ্যাপস তারপর মাই অ্যাপসে গিয়ে লিস্ট থেকে ডাউনলোড করতে হবে।

গতানুগতি অ্যাপ যা আমরা সব সময় ব্যবহার করে থাকি সেগুলো ছাড়াও মুভি দেখার জন্য এখন অনেক ধরনের অ্যাপ রয়েছে। সেগুলো যেন ইন্সটল করা যায় সেদিকে খেয়াল রাখুন

ফ্লাশ সাপোর্ট

স্মার্ট টিভিতে ফ্লাশ সাপোর্টের ব্যবস্থা থাকা উচিত। যেহেতু অনেক সাইট থেকে ভিডিও, মুভি ইত্যাদি দেখা হয়। তাই ফ্লাশ সাপোর্ট আছে কিনা দেখে কিনুন। আর না থাকলে ইন্সটল করে নিতে হবে।

অ্যাপ স্টোর

স্মার্ট টিভিতেও অ্যাপ্লিকেশন ইন্সটল করার জন্য অ্যাপ স্টোর থাকে। অনেক অ্যাপসই আপনি ফ্রিতে ডাউনলোড করতে পারবেন অ্যাপ স্টোর থেকে। ব্রান্ড অনুযায়ী অ্যাপ্লিকেশান কম্ বেশি থাকতে পারে অ্যাপ স্টোরে। তাই পছন্দের অ্যাপটি আছে কিনা আগেই দেখে নিন। সাধারণত অ্যাপ স্টোর এবং অ্যাপ সাপোর্ট থাকে স্মার্ট টিভিতে।

রিমোট কন্ট্রোল

গতানুগতি রিমোট দিয়ে স্মার্ট টিভি চালাচ্ছেন ব্যাপারটি হাস্যকর না? সাধারণ রিমোট দিয়ে স্মার্ট টিভির এত ফাংশন পরিচালনা করাও অনেক ঝামেলার। তাই টাচ রিমোট কিনা টিভি কেনার আগে দেখে নিন। এখন স্মার্ট টিভির জন্য বিশেষ রিমোট কন্ট্রোল বাজারে বিদ্যমান।

শেষ কথা

এগুলো ছাড়াও আরও ফিচার স্মার্ট টিভিতে রয়েছে যেমনঃ স্ক্রীন টাচ ফিচার, ডিভাইস বা মিডিয়ার সংযোগ (Apple TV, PS3, Roku, Tivo), 3D স্ক্রীন, স্পোর্টস মুড, কুইক কানেকশন ইত্যাদি। যত ভালো ব্রান্ড আর প্রাইজ হবে ফিচার আরও উন্নত হবে। তবে সীমিত বাজেটে স্ট্যান্ডার্ড ব্রান্ডের ক্ষেত্রে উপরের ফিচারগুলো থাকলেই যথেষ্ট। যাইহোক, যা যা আলোচনা করা হলও এখানে স্মার্ট টিভিতে কী কী ফিচার থাকা প্রয়োজন পোস্টটি আশা করা যায় সবার উপকারে লাগবে।

Leave a Comment